সরকারী চালসহ টাকা লুটপাট, ৯৪ জন প্রতিনিধির খোজে দুদক


সকালের-সময় রিপোর্ট  ২৮ জুন, ২০২০ ৩:০৮ : অপরাহ্ণ

দেশের বিভিন্ন জেলার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য, পৌর কাউন্সিলর মিলে ৯৪ জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। করোনা মহামারীতে সরকারের বিভিন্ন সামাজিক নিরাপত্তামূলক কর্মসূচির সুবিধাদি আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে এই সব জনপ্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে। তালিকায় চট্টগ্রামের কয়েকজনের নামও রয়েছে। বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য।

দুদক সূত্রে জানা গেছে, শনিবার (২৭ জুন) দুপুরে তিনি জানান, কমিশনের অভিযোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত মহাপরিচালক এ কে এম সোহেলের নেতৃত্বে যাচাই-বাছাই কমিটির সুপারিশের প্রেক্ষিতে কমিশন এই ৯৪ জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয়। এর মধ্যে ৩০ জন ইউপি চেয়ারম্যান এবং ৬৪ জন ইউপি সদস্য রয়েছেন। এসব জনপ্রতিনিধিদের ইতোমধ্যে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে।

দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য শনিবার দুপুরে বলেন, ৯৪ জনপ্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ পাওয়া গেছে। এরমধ্যে সরকারি ত্রাণ আত্মসাৎ, ভুয়া মাস্টাররোলের মাধ্যমে সরকারি চাল আত্মসাৎ, সরকারি ১০ টাকা কেজির চাল কালোবাজারে বিক্রি, জেলেদের ভিজিএফ-এর চাল আত্মসাৎ, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে দরিদ্রদের সাহায্যের তালিকায় স্বজনপ্রীতি ও অনিয়ম, উপকারভোগীদের ভুয়া তালিকা প্রণয়ন করে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির সামগ্রী আত্মসাৎ ইত্যাদি রয়েছে।

দুদক চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে শনিবার রাতে দৈনিক আজাদীকে বলেন, ‘দুদক প্রধান কার্যালয় থেকে ৯৪ জন জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত হয়েছে শুনেছি। তন্মধ্যে চট্টগ্রামের কয়েকজন রয়েছে। এখনো চট্টগ্রামে তালিকাটি আসেনি। কাল-পরশু তালিকাটি চট্টগ্রামে আসতে পারে।

সকালের-সময়/এমএমএ

Print Friendly, PDF & Email

আরো সংবাদ