বিষয় :

প্রশ্নপত্র ফাঁসের কোনো সুযোগ নেই : শিক্ষামন্ত্রী


সকালের সময় : ১৪ নভেম্বর, ২০২১ ১:৪৮ : অপরাহ্ণ

শিক্ষাঙ্গণ ডেস্ক : করোনাভাইরাসের কারণে নির্ধারিত সময়ের সাড়ে আট মাস পর রবিবার থেকে শুরু হয়েছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা।

রবিবার সকাল ১০টায় সারাদেশে একযোগে শুরু হয়েছে পরীক্ষা। পরীক্ষা চলে সকাল সাড়ে ১১টা পর্যন্ত। বিকালের পরীক্ষা দুপুর ২টা থেকে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে।

সকালে রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, চলমান এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের কোনো সুযোগ নেই। তবে একটি চক্র গুজব রটানোর চেষ্টায় আছে। তাদের বিরুদ্ধে আমরা কঠোর আছি। কাউকে পাওয়া গেলে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্বাস্থ্যবিধি মানতে কেন্দ্রের বাইরে অযথা ভিড় না করতে অভিভাবকদের প্রতি আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘অনেক অভিভাবক যথাযথভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। কেন্দ্রের বাইরে অযথা ভিড় করছেন। এটা খুবই দুঃখজনক।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, নতুন শিক্ষাক্রম চালু হলে জেএসসি পরীক্ষা থাকার কথা নয়, মূল্যায়ন হবে ভিন্ন পদ্ধতিতে। তিনি জানান, সব শিক্ষা বোর্ড মিলে (১১টি বোর্ড) পরীক্ষার্থী মোট অংশ নিয়েছে ২২ লাখ ৪৩ হাজার ২৫৪ জন। যার মধ্যে ছাত্র ১০ লাখ ৩৬ হাজার ১৮৮ জন এবং ছাত্রী ১২ লাখ ৭ হাজার ৬৬ জন।

ছাত্রদের চেয়ে এবার প্রায় ১ লাখ ৭০ হাজারের মতো বেশি ছাত্রী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে । এবার কেন্দ্র ৩ হাজার ৬৭৯টি কেন্দ্রে ৩৯ হাজার ৩৫টি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। সমস্যা হচ্ছে বাইরে অভিভাবকরা যেখানে দাঁড়াচ্ছেন, সেখানে অনেক ভিড়।

সেখানে হয়তো তারা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। আমরা আগেও অনুরোধ জানিয়েছিলাম, আবার অনুরোধ জানাবো বাইরে যেখানেই থাকবেন, ভিড় বা জটলা করবেন না।‘

পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনের সময় শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক, আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ এবং সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এস এস/

Print Friendly, PDF & Email

আরো সংবাদ