বিএনপি নেতার কাণ্ড

কর্মীরা যখন অনশনে, নেতা তখন চায়ের দোকানে!


সকালের-সময় রিপোর্ট  ২২ নভেম্বর, ২০২১ ৮:৪৭ : অপরাহ্ণ

দলীয় নেতাকর্মীরা যখন প্রিয় নেত্রীর রোগ মুক্তি কামনা ও সুচিকিৎসার দাবীতে গণ অনশন করছেন তখন চন্দনাইশ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক নুরুল আনোয়ার চৌধুরী ও চন্দনাইশ উপজেলা যুবদলের নেতা নেছার উদ্দিন তখন চায়ের দোকানে পেট পুজায় ব্যস্ত।

শনিবার (২০ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার সময় খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবীতে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির উদ্যোগে কেন্দ্র ঘোষিত সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত গণঅনশন কর্মসূচী চলাকালেই সিনিয়র নেতারা চায়ের দোকানে মশগুল ছিলেন।

এর আগে তারা অনশন কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন। বক্তব্য রেখে কর্মীদের স্টেইজে রেখে চায়ের দোকানে খাবার খেতে চলে আসেন।

এমন দৃশ্য বিএনপি ও অংগ সংগঠনের বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতা কর্মীর চোখে পড়ার পর তারা রীতিমতো হতাশ হয়েছেন। অনেক কর্মী গোপনে দৃশ্যটি তাদের মোবাইলে ধারণ করেন। পাশাপাশি ঘৃণা ও ক্ষোভ ঝারেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দক্ষিণ জেলা বিএনপি ও যুবদলের কয়েকজন নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, গণ অনশন কর্মসূচিতে কর্মীদের স্টেইজে বসিয়ে রেখে চন্দনাইশ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক নুরুল আনোয়ার চৌধুরী ও চন্দনাইশ উপজেলা যুবদলের নেতা নেছার উদ্দিন হোটেলে বসে নাস্তা করার যে দৃশ্যটি চোখে পড়েছে তা কোন ভাবেই মেনে নিতে পারছি না।

রাজনীতির উপরও কেমন জানি একটা অতৃপ্ত অনুভুতিতে গাঁ শিউরে উঠছে। এ ঘটনায় তৃণমূল নেতা কর্মীরা মর্মাহত। কর্মীরা ব্যথিত। তাদের প্রশ্ন সিনিয়র নেতাদের এমন কর্মকান্ডে কর্মীরা কি আশা করছে?

আমাদের মায়ের সমতুল্য নেত্রী বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু পথযাত্রী সেখানে আমরা মাত্র ৭ ঘণ্টা উপাস থাকতে পারলাম না! সিনিয়র নেতৃবৃন্দ’র কাছে উক্ত ঘটনার বিচার দাবি করেছেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা।

এ বিষয়ে চন্দনাইশ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক নুরুল আনোয়ার চৌধুরী বলেন, নাস্তা করার বিষয়টি সত্যি নয়, সামনে কমিটি গঠন হবে তাই কিছু নেতা কর্মী আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

তবে অনশনের সময় হোটেলে নাস্তা করার যথেষ্ট প্রমান প্রতিবেদকের হাতে আছে বলার পর তিনি তখন বিষয়টি নিয়ে সংবাদ প্রকাশ না করার জন্য প্রতিবেদককে অনুরোধ করেন এবং চন্দনাইশের প্যানেল মেয়র মাসুদকে মোবাইল ফোন ধরিয়ে দিয়ে প্রতিবেদকের সাথে কথা বলতে দেন।

তখন তিনি দক্ষিণ জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদকও চন্দনাইশ পৌর-সভার প্যানেল মেয়র মাসুদ পরিচয় দিয়ে বলেন, দলের মধ্য অনেক কিছু হবে, পদ পদবীর জন্য কিছু উচ্ছৃঙ্খল কর্মী আমাদের দলের বিরুদ্ধে কাজ করছে, তারা আমাদের দলের দালাল এবং আমাদের শত্রু,  আপনার তথ্য প্রমান থাকলে আপনি নিউজ করে দেন, মোবাইল থাকাতে মানুষ এখন যা কিছু ইচ্ছে তা করতে পারে।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির উদ্যোগে শনিবার (২০ নভেম্বর) নগরীর কালামিয়া বাজারস্থ লিজা গার্ডেন কমিউনিটি সেন্টারে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবীতে কেন্দ্র ঘোষিত সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত গণঅনশন কর্মসূচী পালন করা হয়।

এতে বিএনপি কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম প্রধান অতিথি ছিলেন। সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবু সুফিয়ান।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মোস্তাক আহমদ খানের পরিচালনায় গণ-অনশনে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন সাবেক মন্ত্রী জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য এনামুল হক এনাম, মোশাররফ হোসেন, এড. ইফতেখার হোসেন চৌধুরী মহসীন, চন্দনাইশ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক নুরুল আনোয়ার চৌধুরী।

গণ অনশনে বক্তব্য রাখেন এড. ফোরকান, আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী, এম মঞ্জুর উদ্দীন চৌধুরী, এস এম মামুন মিয়া, নাজমুল মোস্তাফা আমিন, চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান, লায়ন হেলাল উদ্দীন, খোরশেদুল হক, নুরুল ইসলাম, মোজাম্মেল হক ভিপি, হুমায়ুন কবির আনছার চেয়ারম্যান, হাজী ইছহাক চৌধুরী, এড. কাশেম চৌধুরী, অধ্যাপক এহছানুল মওলা, নুরুল কবির, মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, মঈনুল আলম চৌধুরী ছোটন।

গণ অনশনে অংশ নেন বিএনপি নেতা মাহমুদুর রহমান মাহদু, হাজী ওসমান, গাজী তাহের, আবুল কালাম আবু, সারোয়ার হোসেন, এড. শওকত ওসমান, জেলা যুবদলের সভাপতি মোহাম্মদ শাহজাহান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুর উদ্দিন তালুকদার, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শহীদুল আলম শহীদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সি. সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম রাহী, জেলা যুবদলের সি. যুগ্ন সম্পাদক মোজাম্মেল হক,জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মহসিন, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক কেএম আব্বাস,জেলা ওলামা দলের আহবায়ক মৌলানা মো. ফোরকান, হাফেজ মাওলানা আবদুল করিম, মাওলানা মাহফুজুর রহমান আনিস, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আবদুস সবুর, সাংগঠনিক সম্পাদক ফৌজুল কবির ফজলু প্রমুখ।

গণ-অনশনে শেষে নেতাকর্মীদের জুস পান করিয়ে অনশন ভঙ্গ করান চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবি সমিতির সাবেক সভাপতি এড. এস এম বদরুল আনোয়ার।

সকালের-সময়/এমএফ

Print Friendly, PDF & Email

আরো সংবাদ