বাকলিয়াকে মাদক-সন্ত্রাসমুক্ত আধুনিক এলাকায় পরিণত করবো: শাহাদাত


সকালের-সময় রিপোর্ট  ২২ জানুয়ারি, ২০২১ ১০:১৭ : অপরাহ্ণ

চসিক নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, ‘বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে অবহেলিত বাকলিয়াকে উন্নত এলাকায় রুপান্তর করা হয়েছে। পরবতীর্তে বাকলিয়ার প্রতি নজর দেয়নি বর্তমান সরকার।

আমি মেয়র নিবার্চিত হলে বাকলিয়াকে একটি মাদক, সন্ত্রাস ও আর্বজনামুক্ত আধুনিক বাকলিয়ায় পরিণত করবো। শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) দিনব্যাপী নগরের বাকলিয়া এলাকায় ধানের শীষের পক্ষে গণসংযোগকালে তিনি এসব কথা বলেন।

ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, আমি বাকলিয়ার সন্তান। বাকলিয়া আমার নিজের এলাকা। বাকলিয়ার মানুষের সাথে আমার আত্মার সর্ম্পক। এখানে আমার জন্ম ও বেড়ে উঠা। এক সময়ের অনুন্নত এই বাকলিয়াকে বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে শহরে রুপদান করা হয়েছে। অবহেলিত বাকলিয়াকে উন্নত এলাকায় রুপান্তর করা হয়েছে। পরবতীর্তে বাকলিয়ার প্রতি নজর দেয়নি বর্তমান সরকার। আমি মেয়র নিবার্চিত হলে বাকলিয়াকে একটি মাদক, সন্ত্রাস ও আর্বজনামুক্ত আধুনিক বাকলিয়ায় পরিণত করবো।

ডা. শাহাদাত বলেন, ‌বৃহত্তর বাকলিয়ার উন্নয়নে বিএনপির অবদান সবচেয়ে বেশি। বাকলিয়ায় এক সময় কোন স্কুল কলেজ ছিল না। শিক্ষার মান উন্নত করার জন্য বিএনপির সময়ে বাকলিয়ায় উচ্চ ও মাধ্যমিক স্কুল এবং একমাত্র শহীদ এনএমজে ডিগ্রি কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল।

তাছাড়া বাকলিয়া স্টেডিয়াম ও কর্ণফুলী শাহ আমানত সেতু নির্মাণ করা হয়েছিল। বিএনপি বাকলিয়ার আইলকে রাস্তায় পরিণত করেছে। বাকলিয়ায় বিভিন্ন মসজিদ ও মন্দির নির্মাণে অনুদান দেয়া হয়েছিল। আমি মেয়র নির্বাচিত হলে বৃহত্তর বাকলিয়া বাসীর জন্য চাইল্ড কেয়ার ও মাতৃসদন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করবো। অবহেলিত এ বাকলিয়ার উন্নয়নে নিজিকে উৎর্সগ করবো।

গণসংযোগকালে বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, ‘বাকলিয়া নগরের একটি প্রসদ্ধি ও ঐতহ্যিবাহী এলাকা। এখানকার রাস্তাঘাট, অলিগলি সবই ডা. শাহাদাতের চেনা-জানা। র্দীঘদিন ধরে অবহলেতি থাকা এ বাকলিয়ায় বিএনপির আমলে অনেক উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে।

বাকলিয়াবাসীর প্রতি বিএনপির অনেক দাবি আছে। সেই দাবি নিয়ে আমরা ডা. শাহাদাত হোসেনের জন্য ধানের শীষে ভোট চাইতে এসেছি। ডা. শাহাদাত হোসনে একজন পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ। তাকে ধানের শীষে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করুন।’

এসময় বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব হাবিবুন নবী খান সোহেল বলেন, ‘ভোটের দিন সকালে সকালে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ভোটকেন্দ্র পাহারা দিয়ে পাশাপাশি ভোটে বাধাদানকারীদের প্রতিহত করে ভোটের অধিকার আদায় করে নিতে হবে। পিছিয়ে থাকা বাকলিয়াবাসীর নাগরিক মান উন্নয়নের জন্য ডা. শাহাদাতের বিকল্প হতে পারে না। তিনি সকলকে ২৭ তারিখ ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে ধানের শীষে ভোট দেয়ার আহবান জানান।’

মেয়র প্রার্থী শাহাদাত হোসেন কেন্দ্রীয় নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, হাবিবুন নবী খান সোহেল, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, শহীদুল ইসলাম বাবুল, ব্যারিস্টার মীর হেলাল উদ্দিনকে সাথে নিয়ে ১৭নং পশ্চিম বাকলিয়া ওর্য়াডের রাহাত্তারপুল মোড় থেকে গণসংযোগ শুরু করে মাজারগলি, ডেপুটি রোড, কালামিয়া বাজার, সৈয়দ শাহ রোড, কে.বি আমান আলী রোড, ধনীরপুল, ডিসি রোড হয়ে আফগান মসজিদ এলাকায় এসে শেষ করেন। ১৯নং দক্ষিণ বাকলিয়ার ওর্য়াডের বউ বাজার খাজা হোটেলের সামনের থেকে শুরু হয়ে ডাইল বাড়ি, ময়দার মিল, চর চাক্তাই স্কুল, আলী স্টোর বিল্ডিং, আবু জফুর রোড়, তুলাতলি, নয়া মসজিদ, জামাই বাজার, ইসমাইল ফয়েজ রোড়, আমিনুর রহমান হাজী রোড় হয়ে মিয়াখান সওদাগর পুল এস শেষ হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবু সুফিয়ান, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক এস কে খোদা তোতন, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, সদস্য আনোয়ার হোসেন লিপু, গাজী মো. সিরাজ উল্লাহ, দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী ইয়াছিন চৌধুরী আসু, বিএনপি নেতা ইসহাক চৌধুরী আলীম, এম আই চৌধুরী মামুন, ইব্রাহিম বাচ্চু, আমীন মাহমুদ, একে খান, আফতাবুর রহমান শাহীন, আলমগীর নুর, ইঞ্জিনিয়ার মেজবাহ উদ্দিন রাজু, পূর্ব ষোলশহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী হাসান লিটন, পশ্চিম বাকলিয়া ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী আরিফুল ইসলাম ডিউক, মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী শামিমা নাসরিন, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি হাজী নবাব খান, মো. সেকান্দর, আব্দুল্লাহ আল ছগির, সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. এমরান, অঙ্গসংগঠনের নেতা ম হামিদ, এমদাদুল হক বাদশা, জিয়াউর রহমান জিয়া, গোলজার হোসেন, শরিফুল ইসলাম তুহিন প্রমুখ।

সকালের-সময়/এমএফ

Print Friendly, PDF & Email

আরো সংবাদ