বাজেটকে স্বাগত জানাতে গিয়ে আনোয়ারা রণক্ষেত্র


নিউজ ডেস্ক  ৭ জুন, ২০২৪ ১০:০৮ : অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় বাজেটকে স্বাগত জানাতে গিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়েছেন অর্থ প্রতিমন্ত্রী ওয়াসিকা আয়শা খান ও সাবেক ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরীর অনুসারীরা। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ছয় রাউন্ড গুলি ছোড়ে পুলিশ। এ ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মন্নান চৌধুরী ও পুলিশ সদস্য মো. জাবেদসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার বিকেলে উপজেলার কাফকো সেন্টার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আনোয়ারা থানার ওসি সোহেল আহাম্মদ ও বন্দর ফাঁড়ির ইনচার্জ মিজানুর রহমান।

আহত বাকিরা হলেন—আনোয়ারা উপজেলার বরুমচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন, চাতরী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি তাজউদ্দীন, অজিদ কুমার নাথা, সাইফুল ইসলাম, ফরিদুল আলম টিপু, কাকন আইচ, জামশেদুল ইসলাম, মোহাম্মদ এরশাদ, পথচারী মোহাম্মদ মনির। এদের মধ্যে অধ্যাপক এমএ মান্নান চৌধুরীকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়—প্রস্তাবিত ২০২৪-২০২৫ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে সাবেক ভূমিমন্ত্রীর অনুসারী আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক এমএ মান্নান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিনের নেতৃত্বে কাফকো সেন্টারে আনন্দ মিছিল ও সভার আয়োজন করা হয়।

একই স্থানে পাল্টা কর্মসূচি ঘোষণা করে অর্থ প্রতিমন্ত্রীর উপজেলার সাবেক ও বর্তমান আওয়ামী লীগের নেতারা। বিকেলে দুই গ্রুপের নেতাকর্মীরা অনুষ্ঠানস্থলে মিছিল নিয়ে জড়ো হন। এ সময় তারা পাল্টাপাল্টি স্লোগান দেন। একপর্যায়ে দুই গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি ও পরবর্তী সময়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় ১৫ জন আহত হন। ঘটনার পর থেকে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

অর্থ প্রতিমন্ত্রীর অনুসারী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক জিয়া উদ্দিন বাবলু বলেন, জাতীয় বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করা হয়। আমরা বিকেল তিনটায় অবস্থান নিয়েছি। তারা বিকেল ৪টার দিকে এসে আমাদের শান্তিপূর্ণ মিছিলে অতর্কিত হামলা চালায়।

সাবেক ভূমিমন্ত্রীর অনুসারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের ব্যানারে কর্মসূচি ঘোষণার পর তারা একই স্থানে পাল্টা কর্মসূচি দিয়েছে। পরিকল্পিতভাবে আমাদের কর্মসূচিতে হামলা চালিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীকে আহত করে।

আনোয়ারা থানার ওসি সোহেল আহাম্মদ বলেন, দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটেছে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। কয়েকজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কর্ণফুলী থানার ওসি জহির হোসেন বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ছয় রাউন্ড গুলি ছোড়ে। সংঘর্ষের ঘটনায় মো. জাবেদ নামে এক পুলিশ আহত হয়েছেন।

এসএস/এমএফ

Print Friendly, PDF & Email

আরো সংবাদ