মার্কিন তদন্ত প্রতিবেদন..

খাশোগি হত্যায় সরাসরি জড়িত সৌদি যুবরাজ সালমান


সকালের-সময় বিশ্ব ডেস্ক ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ৭:২০ : পূর্বাহ্ণ

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে আটক বা হত্যা করতে অভিযান চালানোর অনুমোদন দিয়েছিলেন বলে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। সিএনএন ও বিবিসির প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

শুক্রবার জামাল খাশোগি হত্যার গোয়েন্দা প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্র এ তথ্য প্রকাশ করে। প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ডিরেক্টর অব ন্যাশনাল ইনটেলিজেন্সের দপ্তর।

গোয়েন্দা প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে ধরা বা হত্যার জন্য তুরস্কের ইস্তাম্বুলে একটি অভিযানে চালানোর অনুমোদন বা অনুমতি দেন। এই অভিযানে সৌদি যুবরাজের যে অনুমতি ছিলো তা তিনটি কারণে বিশ্বাস করা যায়।

কারণ তিনটি হলো: প্রথমত: ২০১৭ সাল থেকে রাজ্যের সিদ্ধান্ত গ্রহণের ওপর তার নিয়ন্ত্রণ। দ্বিতীয়ত: খাশোগি হত্যায় তার একজন উপদেষ্টার সরাসরি জড়িত থাকা। তৃতীয়ত: বাইরের দেশে অবস্থানরত ভিন্ন মতাবলন্বীদের দমনে সহিংস পদেক্ষপ গ্রহণে তার সমর্থন।

চার পৃষ্ঠার ‘জামাল খাশোগি হত্যায় সৌদি সরকারের ভূমিকা’ শীর্ষক এ গোয়েন্দা প্রতিবেদনটি শুক্রবার প্রকাশ করা হয়। তবে পশ্চিমা বিশ্বে এমবিএস নামে পরিচিত যুবরাজ নিয়মিতভাবে এই অভিযোগ অস্বীকার করে যাচ্ছেন, যদিও তার ঘনিষ্ঠ কয়েকজন উপদেষ্টা এই হত্যাকাণ্ডে নিবিড়ভাবে জড়িত ছিলেন।

এমন এক সময় খাশোগি হত্যার গোয়েন্দা প্রতিবেদন প্রকাশ হলো যখন মধ্যপ্রাচ্যে সম্পর্ক ঢেলে সাজাতে চেষ্টা করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এর আগে বৃহস্পতিবার সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

২০১৮ সালের অক্টোবরে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে ওয়াশিংটন পোস্টের এই সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে নির্মমভাবে হত্যা করে তার শরীর টুকরো টুকরো করে গুম করে দেয় একদল গুপ্তঘাতক। সেদিন নিজের বিয়ের কাগজপত্র আনতে তিনি ওই কনস্যুলেটে গিয়েছিলেন।

এসএস

Print Friendly, PDF & Email

আরো সংবাদ